Monday, 24 July 2017
ইভেন্ট হেডলাইন
×

Warning

Error loading component: com_languages, Component not found.

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচী অনুষ্ঠিত

0
0
0
s2smodern
powered by social2s

বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি শাখার উদ্যোগে এ কর্মসূচী পালন করা হয়।

আজ মঙ্গলবার (এপ্রিল ০৪, ২০১৭) বেলা ১১ থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ইউনিভার্সিটির সামনে এ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ইউনিভার্সিটির সকল শিক্ষার্থী ও শিক্ষক সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে প্রতিবাদ জানায়। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক শরীফ। এছাড়াও অন্যান্যের মধ্যে পরিচালক (প্রশাসন ও নিরাপত্তা) কেএসএম এজাজ আফজাল বীর প্রতীক (অবঃ), বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি শাখার সভাপতি মোঃ সায়েদুর রহমান (সাগর), সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাহাত হোসেন, আওয়ামী আইন ছাত্র পরিষদ, বিইউ’র শাখার সভাপতি মোঃ ওসমান গনি নোমান, ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদসহ অপরাধ প্রবণতা ঠেকাতে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের মননে ধর্মের নামে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে চেতনা জাগ্রত করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় আজকের এ আয়োজন।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক শরীফ বলেন, “আজকের দিনে সবচেয়ে বড় সমস্যা জঙ্গী ও সন্ত্রাসবাদ। এর বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের মধ্যে চেতনা জাগ্রত করতে হবে।” মানবন্ধন শেষে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে গণস্বাক্ষর কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়।

নিউইয়র্কে নির্মিত হচ্ছে শহীদ মিনার

0
0
0
s2smodern
powered by social2s

বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবিতে আত্মত্যাগকারী শহীদদের স্মরণে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে নির্মিত হতে যাচ্ছে শহীদ মিনার। সিটি ইউনিভার্সিটি অফ নিউইয়র্কের লার্গোডিয়া কমিউনিটি কলেজে এ শহীদ মিনার নির্মিত হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে আবস্থিত বাঙালিদের দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন ছিল স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণের। দীর্ঘদিন বাংলাদেশি কমিউনিটির অনেকই চেষ্টা করেও সফল হতে পারেন নি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ যুক্তরাষ্ট্র শাখার সভাপতি জাহিদ হাসান যখন নিউইয়র্কের সিটি ইউনিভার্সিটি অফ নিউইয়র্ক এর আওতাধীন লার্গোডিয়া কমিউনিটি কলেজের ছাত্র ছিলেন তখন তিনিও চেয়েছিলেন, কিন্তু পারেন নি।

পরবর্তীকালে তার ছোট ভাই রায়হান মাহমুদ লার্গোডিয়া কলেজ স্টুডেন্ট গভর্নেন্ট এসোসিয়েশন গভর্নর নির্বাচত হলে তার হাতে শহীদ মিনার নির্মাণের গুরত্ব তুলে ধরা সম্বলিত সেই প্রোফাইল এবং শহীদ মিনারের নকশা তুলে দেন। রায়হান মাহমুদ এসোসিয়েশনের কাছে বিলটি নতুন করে প্রস্তাব করেন।

সিটি ইউনিভার্সিটি অফ নিউইয়র্ক এর লার্গোডিয়া কমিউনিটি কলেজের স্টুডেন্ট গভর্নেন্ট এসোসিয়েশনের গভর্নর রায়হান মাহমুদ এ বিষয়ে জানান, আমি গভর্নর নির্বাচিত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হাসানের সাথে আলোচনা করেছিলাম কিভাবে লার্গোডিয়া কলেজে শহীদ মিনার স্থাপন করা সম্ভব। এরই ধারাবাহিকতায় লার্গোডিয়া কলেজের স্টুডেন্ট গভর্নরদের সাথে দীর্ঘদিন আলাপ আলোচনার পরে আমি শহীদ মিনার নির্মাণের জন্য প্রস্তাবটি স্টুডেন্ট গভর্নেন্টে এসোসিয়েশন এর নিকট পেশ করি।

শহীদ মিনার নির্মাণের বিলটি স্টুডেন্ট গভর্নেন্ট এসোসিয়েশনের কাছে পেশ করার পর ১২ জন গভর্নরের ভিতরে ৮ জন গভর্নর ওই প্রস্তাবে সম্মতি জানায় এবং গত ২৫ শে জানুয়ারি বিলটি স্টুডেন্ট গভর্নেন্টে পাশ হয়। স্টুডেন্ট গভর্নেন্ট এসোসিয়েশনের যে ৮ জন প্রতিনিধি প্রস্তাবিত বিলে সম্মতি দিয়েছেন, তারা হলেন ফজলে রাব্বি, শেখ হাফিজ, জয়ি ফার্নান্ডেজ, ইয়ং জো, ইয়ংগরু জিয়াও, জিয়ায়ন লি ও ইয়াইউ ঝাউ।

এরই মধ্যে শহীদ মিনার স্থাপনের জন্য খরচ বাবদ ৮ হাজার ডলার স্টুডেন্ট গভর্নেন্ট এসোসিয়েশন থেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। শহীদ মিনারটি লার্গোডিয়া কমিউনিটি কলেজের 'ই' বিল্ডিং এবং 'এম' বিল্ডিংয়ের মাঝে খোলা চত্তরে ১০ ফিট বাই ১০ ফিট সাইজের তৈরি করা হবে বলে জানা গেছে।

ই৭/আরএস

মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে ‘সায়েন্স অলিম্পিয়াড-২০১৭’ অনুষ্ঠিত

0
0
0
s2smodern
powered by social2s

বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমীর উদ্যোগে এবং ফার্স্ট সিকিউিরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ-এর পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশের প্রাক-বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশ গ্রহনে ‘বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড-২০১৭’-এর বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা সম্প্রতি সিলেটের মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সিলেট বিভাগের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের মোট ২০৬ জন শিক্ষার্থী এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ করে। দেশে বিজ্ঞান শিক্ষার উন্নয়ন ও তরুণ শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানমনস্ক ও বিজ্ঞানচর্চায় উদ্ধুদ্ধ করাই ‘বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড-২০১৭’-আয়োজনের মূল লক্ষ্য। ২০০২ সাল থেকে নিয়মিতভাবে অনুষ্ঠিত এই অলিম্পিয়াড বিভাগীয় ও জাতীয় পর্বে আয়োজন করা হচ্ছে। বিভাগীয় পর্যায়ে নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রীরা জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেয়। জাতীয় পর্যায়ে কৃতিত্ব প্রদর্শনকারীদের নিয়ে গঠিত হবে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে যোগদানের লক্ষ্যে গঠিত বাংলাদেশের জাতীয় দল। মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সালেহ উদ্দিন-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় প্রাণবন্ত ‘সায়েন্স টক’ পর্ব। এই পর্বে শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য এবং বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমীর ফ্যালো ও সচিব অধ্যাপক ড. মেছবাহ উদ্দিন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের গুণগত মান বিশেষজ্ঞ ড. সঞ্জয় অধিকারী, ফার্স্ট সিকিউিরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড-এর এফএভিপি জনাব এ. কে. এম হাসানুজ্জামান, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মো. ইউনুছ, অ্যধাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম এবং জনাব আব্দুল আউয়াল বিশ্বাস, মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. নজরুল হক চৌধুরী এবং সিএসই বিভাগের প্রধান চৌধুরী মো. মোকাম্মেল ওয়াহিদ। অলিম্পয়াডে অংশ গ্রহনকারীদের মধ্য থেকে এসএসসি এবং এইচএসসি গ্রুপ থেকে প্রথম ৫ জন করে বিজয়ী মোট ১০ জনকে জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচন করা হয় এবং সেরা ২৫ জনকে সনদপত্র ও পুরস্কার প্রদান করা হয় । অলিম্পিয়াডে অংশ গ্রহণকারী তরুণ শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের উপর আগ্রহ ও অনুপ্রেরণা প্রদানের জন্য মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্ভাবিত বিভিন্ন আকর্ষনীয় প্রজেক্ট প্রদশর্নীর আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইইই বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক নওশাদ আহমদ চৌধুরী এবং ‘সায়েন্স অলিম্পিয়াড-২০১৭’-এর সম্বয়ক হিসেবে সার্বিক দায়িত্ব পালন করেন সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফুয়াদ আহমদ এবং সহকারী রেজিস্টার ও জনসংযোগ কর্মকর্তা লোকমান আহমদ চৌধুরী।

ই৭/আরএস

সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

0
0
0
s2smodern
powered by social2s

সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের উদ্যোগে বিভাগটির ৮ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও ইতিহাস-ঐতিহ্যভিত্তিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গত ১৯ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে বনানীস্থ ক্যাম্পাসের সেমিনার হলে দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠান চলে।

সাউথইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর চৌধুরী-এর সভাপতিত্বে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের চেয়ারপারসন ড. রকিবুল হাসান স্বাগত বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে প্র্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএফএম মফিজুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মেজর জেনারেল কাজী ফকরুদ্দীন আহমেদ, এসপিপি, পিএসসি (অবঃ)।

উক্ত অনুষ্ঠানে আলোচকবৃন্দ ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ভারপ্রাপ্ত ডিন অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুল হাকিম, বাংলা একাডেমির সাবেক পরিচালক অধ্যাপক মুহাম্মদ সিরাজ উদ্দিন এবং বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত পরিচালক কালি রঞ্জন বর্মন।

এছাড়া উক্ত অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনায় দিনব্যাপী নাচ, গান, আবৃত্তি, কৌতুক ও যাত্রা, নাটক পরিবেশিত হয়।

ই৭/আরএস